রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী ইউ,পি নির্বাচনের তফশীল ঘোষনার সাথেই প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত, ভোটের মাঠ দখলে রেখেছে এনামুল

0
39

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সারাদেশের ন্যায় চতুর্থ ধাপে রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার আড়ানী ইউনিয়ন বাউসা ইউনিয়ন ও চকরাজাপুর ইউনিয়ন নির্বাচনের তফশীল ঘোষনা হয়েছে। তফশীল ঘোষনা অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ ডিসেম্বর ২০২১।
এদিকে তপশীল ঘোষনার সাথে সাথে নতুন চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা নড়ে-চড়ে প্রচার প্রচারনা শুরু করেছে। আড়ানী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ইতিমধ্যে তিন জন প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন, তাদের মধ্যে জনমনে উল্লেখযোগ্য ভাবে দাগ কাটতে শুরু করেছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এনামুল হক নিয়ে। আড়ানী ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা আসন্ন ইউ.পি নির্বাচনে নতুন মুখ নির্বার্চিত করবেন এবং বর্তমান যারা সাধারন ভোটারদের কথা চিন্তা করেন, সুখে-দুঃখে খোজ-খবর রাখেন এমন একটি প্রার্থীকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন। আমাদের প্রতিবেদক, এলাকায় গিয়ে আসন্ন নির্বাচন কেন্দ্রিক তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে সাধারন ভোটারগন এমনটি বলেছেন।
আড়ানী ইউনিয়নের সাধারন জনগন এবার ইউ.পি চেয়ারম্যান হিসাবে একজন সৎ, যোগ্য ও শিক্ষিত ব্যক্তিকে নির্বাচিত করবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। তবে জনগনের প্রত্যাশা এবার নতুন মুখ নির্বাচিত করে ইউনিয়ন কে মডেল ইউনিয়ন হিসাবে গড়ে তুলবে। এসকল বিষয় নিয়ে নানা প্রশ্নের উত্তরে উঠে আসে আড়ানী ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক এনামুল হকের কথা। সাধারন ভোটারগন বলেন, এবার আমরা এনামুল হক কে আড়ানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করে আড়ানী কে মডেল ইউনিয়নে রুপ দিব।
আমাদের প্রতিবেদক এনামুল হকের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বর্তমান তথ্য ভিত্তিক উন্নয়নে দেশ এগিয়ে, চলেছে। আমি করোনাকালীন সময়ে আড়ানী ইউনিয়নের জনগনের পাশে থেকে নিজ উদ্যোগে জনগনের অসুবিধা লাঘব করেছে। তিনি বলেন, এই সময় নগদ অর্থ, খাদ্য, বস্ত্র সকল প্রকার সহযোগীতা করেছি আড়ানী ইউনিয়নবাসীদের। এলাকার বিভিন্ন প্রকার জনগনের দায়বদ্ধতার পাশে দাঁড়িয়েছি। যারফলে ইতোমধ্যেই করোনা মহামারিতে জনসচেতনা ও সমাজ সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য “জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড-২০২১” অর্জন করেছি। আমি আশা করি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ইউ.পি নির্বাচনে আমাকেই নৌকার প্রতীক দিবেন। সেক্ষেত্রে আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী, মাননীয় শেখ হাসিনার অনুস্বরনীয় ও তাঁরই আস্থাভাজন সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শাহরিয়ার আলমের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতি করি।
এসকল সার্বিক বিসয়ে বিবেচনা করে এলাকার জনগন সর্বসেরা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী করবেন। বর্তমানে অনেকেই আগামী নির্বাচনে অংশ গ্রহনের কথা ভাবছেন। প্রকৃতপক্ষে ভোটারগন মনে করেন এলাকার উন্নয়ন মানেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়ন। জনগন মনে করেন, এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হলে সৎ. শিক্ষিত ও যোগ্য ব্যক্তিকে নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত করতে হবে। এক্ষেত্রে এনামুল হকের বিকল্প হয় না। কারণ তিনি সর্বদা জনগনের পাশে আছেন।