সিরাজগঞ্জে র‌্যাব-১২ এর অভিযানে ০২ টি রিভালবার এবং গুলিসহ ডাকাত চক্রের ০৬ সদস্য গ্রেফতার; ০১ টি হাইচ মাইক্রো উদ্ধার

0
7

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, ছিনতাইকারী, জুয়ারি, মাদক ব্যবসায়ী, খুন, এবং অপহরণসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর মামলার আসামী গ্রেফতারে র‌্যাব নিয়মিত অভিযান চালিয়ে আসছে।

মোঃ আমিরুল ইসলাম(৪০),পিতা-মোঃ বাবর আলী, সাং-কাতলী,থানা-শালিখা,জেলা-মাগুড়া। তাহার একটি হাইচ গাড়ি আছে। যাহা ভাড়ায় চালিত এবং এর মাধ্যমে উপার্জিত অর্থ দিয়ে তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন। গত ১৭ অক্টোবর ২০২১ তারিখে তার নিজের হাইচ মাইক্রো যাহার রেজিŦ নং- ঢাকা মেট্রো-চ-২০-১২৯৭ গাড়ীটি ১৩ হাজার টাকা ভাড়ায় আসামীরা মেয়ে দেখার নাম করে ঢাকা হতে বগুড়ার উদ্দেশ্যে রওনা করে। পরবর্তীতে গাড়ীর মালিক তার ড্রাইভারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন কিন্তু তিনি চালকের সাথে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন। অতŦপর এই ব্যাপারে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরে সহযোগিতা চান। তখন র‌্যাব সদর দপ্তর র‌্যাবের গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে জানতে পারে যে তার হাইচ গাড়িটির ড্রাইভারকে আগ্নেয়াস্ত্রের মুখে জিম্মি করে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে উক্ত গাড়িটি ব্যবহার করে ডাকাতি করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। র‌্যাব সদর দপ্তর আরও জানতে পারে যে গাড়িটি সিরাজগঞ্জ সায়েদাবাদ মোড় হতে সিরাজগঞ্জ শহরের দিকে আসছে। তাŤক্ষনিক র‌্যাব সদর দপ্তর র‌্যাব-১২ কে বিষয়টি অবহিত ও কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২ এর অধিনায়কের নির্দেশনা মোতাবেক র‌্যাব-১২ এর একটি চৌকষ আভিযানিক দল আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ও গোয়েন্দা নজরদারীর মাধ্যমে সিরাজগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ডের ট্রাক ষ্ট্যান্ডের সম্মুখে চার রাস্তার মোড়ে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে উক্ত গাড়িসহ ডাকাতি চক্রের মূলহোতাসহ ০৫ জন এবং তাদের দেয়া তথ্য মতে বগুড়া জেলার সদর থানাধীন বগুড়া পৌরসভার ১৮ নং ওয়ার্ডের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ার সুফিয়ান সাদিক ভিলার সমনে হতে ০১ জনসহ মোট ০৬ জন আসামী কে গ্রেফতার করেছে।

এ সময় আসামীদের নিকট হতে ১। ০২(দুই)টি রিভালবার ২। ০২(দুই) রাউন্ড রিভালবারের গুলি, ৩। ০৭(সাত)টি মোবাইল ফোন, ৪। নগদ ১৮,৫০০/-(আঠার হাজার পাঁচশত) টাকা ৫। ০১(এক)টি হাইচ গাড়ী, এছারাও ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের দেশীয় অস্ত্র সামগ্রী জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী  ১। মোঃ শফিকুল আলম তুহিন(৪৪), পিতা-মৃত মোকছেদ আলী, সাং-শেলজানা, থানা-চৌহালী,জেলা- সিরাজগঞ্জ, ২। মোঃ বেল্লাল হোসেন(৫৮), পিতা-মৃত আবুল হোসেন প্রামানিক, সাং-ফুলবাড়ী মধ্যেপাড়া,থানা ও জেলা-বগুড়া, ৩। মোঃ সোহাগ(২৯), পিতা-মোঃ মৃত সেলিম প্রামানিক, মাতা-মোছা-সখিনা, সাং-ফুলবাড়ী মধ্যেপাড়া, থানা ও জেলা-বগুড়া, ৪। মোঃ নান্নু মন্ডল(৩২), পিতা-মোঃ আফজাল হোসেন, সাং-দক্ষিণ আটকোবিয়া, পোঃ বালহাট, থানা-সোনাতলা, জেলা-বগুড়া, ৫। মোঃ ইসমাইল সরকার(৫৯), পিতা-মৃত ইছা সরকার, সাং-বেলাশী সরকার বাড়ী, পোঃ আমরাই, থানা-কাপাশিয়া, জেলা-গাজীপুর, ৬। মোঃ বুধা ফকির(৩৫), পিতা-মৃত লভ ফকির, সাং- ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া, থানাও জেলা-বগুড়া।

উল্লেখ্য যে আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, তাহারা একটি ডাকাত চক্র। তাহারা গাড়ী ডাকাতি করে এবং গাড়ীর নাম্বার প্লেট, জিপিএস ট্রাকার এবং গাড়ীর রং পরিবর্তনের  মাধ্যমে গাড়িটি নিজ দখলে নিয়ে নেয়। পরবর্তীতে উক্ত গাড়ী দ্বারা ডাকাতি ও বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ড করে থাকে। আরো জানা যায় যে, তাহাদের অন্যতম সদস্য মোঃ বুধা ফকির(৩৫)। তিনি এই ডাকাত চক্রের একজন বিশেষ টেকনিক্যাল এক্সপাট সদস্য। তাহার কাজ হলো এই ধরনের ডাকাতি করে আনা গাড়ীগুলো নিজ দখলে নিয়ে আসার পরে সে গাড়ীর সকল পার্টস এবং ইলেকট্রিক ও ডিজিটাল পরিবর্তন করা।

প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এই ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন যাবত পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্ন ভাবে ডাকাতি করে মালামাল লুট করে আসছিল বলে জানায়।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ধারায় মামলা দায়ের করত উদ্ধারকৃত আলামতসহ আসামীদের সিরাজগঞ্জ জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।