সিপিএসসি, র‌্যাব-৫, রাজশাহী কর্তৃক ৩২.৪০০ কেজি গাঁজাসহ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

0
48

 

বিশেষ প্রেস বিজ্ঞপ্তি

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ ভোর ০৬.০০ ঘটিকায় নাটোর জেলার নাটোর সদর থানাধীন পূর্ব হাগুরিয়াস্থ মেসার্স এফএনএ ফিলিং স্টেশন রাস্তা সংলগ্ন এলাকায় অপারেশন পরিচালনা করে (১) ৩২.৪০০ কেজি গাঁজা, (২) ০৩ টি মোবাইল, (৩) ০৪ টি সীমকার্ড, (৪) ০১ টি মেমোরিকার্ড, (৫) ০১ টি এ্যাম্বুলেন্স কার, (৬) নগদ=৩,০০০/- টাকা এবং আসামী ১। মোঃ রানা (১৯) (ড্রাইভার), পিতা-মোঃ শহিদুল ইসলাম, মাতা-রিনা বেগম, ২। মোঃ শাহ আলম (৩১) (হেলপার), পিতা-আব্দুস সোবাহান, মাতা-মর্জিনা বেগম, ৩। মোঃ আলামিন হোসেন (১৯), পিতা-মোঃ দুলাল, মাতা-রহিমা বেগম, সর্বসাং-দক্ষিণ গড্ডিমারী, থানা-হাতিবান্ধা, জেলা-লালমনিরহাট কে গ্রেফতার করেন।


ঘটনার বিবরণে প্রকাশ-গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫, রাজশাহীর সিপিএসসি, মোল্লাপাড়া ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী ০১টি সাদা রংয়ের এ্যাম্বুলেন্স কারে মাদকদ্রব্যসহ নাটোর হইতে রাজশাহী অভিমুখে আসিতেছে। উক্ত সংবাদ প্রাপ্ত হইয়া ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবগত করিয়া সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ রাত্রী-০৫.০০ ঘটিাকায় নাটোর জেলার নাটোর সদর থানাধীন পূর্ব হাগুরিয়াস্থ মেসার্স এফএনএ ফিলিং স্টেশনের সামনে পাকা রাস্তার উপর চেকপোষ্ট পরিচালনা করি। চেকপোষ্ট করাকালীন ইং ১৭/০৯/২০২১ তারিখ রাত্রী- ০৫.১০ ঘটিকায় নাটোর হইতে রাজশাহীর দিকে ০১টি সাদা রংয়ের এ্যাম্বুলেন্স চেকপোষ্টের সামনে আসিলে সিগন্যাল দিয়ে গতিরোধ করিয়া নাটোর জেলার নাটোর সদর থানাধীন পূর্ব হাগুারিয়াস্থ মেসার্স এফএনএ ফিলিং স্টেশনের সামনে পাকা রাস্তার উপর থামানো মাত্রই ০৩ (তিন) জন ব্যক্তি এ্যাম্বুলেন্স এর দরজা খুলে পালানোর চেষ্টাকালে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সের সহায়তায় উল্লিখিত এ্যাম্বুলেন্সসহ তাহাদেরকে ঘটনাস্থলেই আটক করা হয়।
ধৃত আসামীগনদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে তাহারা প্রকাশ্যে বলে ও স্বীকার করে যে, আটককৃত এ্যাম্বুলেন্স কারের ভিতর মাদকদ্রব্য গাঁজা লুকায়িত আছে। অতঃপর সাক্ষীদের উপস্থিতিতে উক্ত আসামীগনের দেখানো ও তাহাদের নিজ হাতে বাহির করিয়া দেওয়ামতে এ্যাম্বুলেন্স কারের ভিতর হইতে খাকী কসটেপ দ্বারা মোড়ানো ০৬ টি পোটলায় যথাক্রমেঃ (৫.৬০০ কেজি+৫.৫০০ কেজি+৫.৫০০ কেজি+৫.৩০০ কেজি+৫.৩০০ কেজি+৫.২০০ কেজি) = সর্বমোট ৩২.৪০০ কেজি অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা, যাহার মূল্য অনুমান=১২ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে অবৈধভাবে মাদকদ্রব্য হেরোইন সংগ্রহ করিয়া স্বীকার করে যে, উক্ত মাদকদ্রব্য গাঁজা লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা সীমান্ত হইতে আনয়ন করিয়া রাজশাহী জেলার বিভিন্ন এলাকায় বিক্রয় করার উদ্দেশ্যে রাজশাহীর দিকে উক্ত এ্যাম্বুলেন্স কার যোগে মাদকদ্রব্য গাঁজা বহন করিয়া আসিতেছিল মর্মে জানায়।

আসামীর বিরুদ্ধে নাটোর জেলার নাটোর সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) সারণি ১৯(গ)/৩৮/৪১ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।