রাজশাহীর বাঘায় ৭টি ইউনিয়নে গণটিকা কার্যক্রম শুরু, পরিদর্শনে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার

0
16

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সারা দেশের ন্যায় রাজশাহীর বাঘা উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায়ে গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে । উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ব্যাপক আয়োজনের মধ্য দিয়ে গণটিকার কার্যক্রম শুরু হয়। তারই ধারাবাহিকতায় দিনব্যাপী উপজেলা চেয়ারম্যান এড. লায়েব উদ্দিন লাভলু ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা পরিদর্শন করেন স্ব-স্ব ইউ.পি চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে।এবারে ১২ আগস্ট পর্যন্ত সারাদেশে ক্যাম্পেইন চালিয়ে ৩২ লাখ মানুষকে টিকা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বর্তমান সরকার ।

শনিবার (৭ আগস্ট) সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া টিকাদান কার্যক্রম চলেছে বিকেল ৩টা পর্যন্ত। বাঘা উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে টিকা দিতে সকাল থেকে কেন্দ্রে ভিড় করেছেন ২৫ বছর ও তদূর্ধ্ব বয়সের ব্যক্তিবর্গ।

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পঞ্চাশোর্ধ্ব বয়স্ক, নারী ও শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগোষ্ঠীকে টিকা দেওয়া হচ্ছে। তবে উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম মেরাজ এক ব্যতিক্রম উদ্যোগ নিয়ে বয়ষ্ক ও প্রতিবন্ধীদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চেয়ারে বসিয়ে তাদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।

প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে টিকাদান কেন্দ্র রয়েছে। এছাড়া পৌরসভা এলাকার বসবাসরতরা স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃকর্মকর্তা ডাঃ রাশেদ আহমেদ বলেন,আজকে উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে মোট ৪ হাজার ২ শত জনগোষ্ঠী কে করোনা ভ্যাকসিন (টিকা) দেওয়া হচ্ছে এবং পর্যায়ক্রমে সরকারী ভাবেই উপজেলার সকল জনগোষ্ঠীকে এই করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হবে বাঘা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মাধ্যমে।
গণটিকা কার্যক্রম চলাকালে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ও শতভাগ মাস্ক ব্যবহার করে সহযোগীতায় ছিলেন, স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, উপজেলা সহকারী কুমশিনার (ভূমি) মনিরুজ্জামান, সদ্য যোগদানকৃত বাঘা থানা অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন, বাঘা থানা পুলিশ বাহিনীর সদস্য, উপজেলা আনসার বাহিনীর সদস্যসহ নানা শ্রেনী পেশার লোকজন।