মেডিকেলে ভর্তির স্বপ্ন পূরণে অন্তরার পাশে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

0
44

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি
মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের চন্ডিপুর বড় ছয়ঘটি গ্রামের অন্তরা খাতুনের পাশে দাঁড়িয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি। অন্তরা খাতুন মেডিকেল কলেজে চান্স পেলেও টাকার অভাবে তার ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।
বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদিক কবির, বাজুবাঘা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান ফজল, সাধারণ সম্পাদক দুলাল হোসেন, গড়গড়ি ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ও আবদুল গনি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনিসুর রহমান, বাঘা প্রেস ক্লাবের সাংবাদিক আবদুল লতিফ মিঞা, নুরুজ্জামান, আমানুল হক আমান, গোলাম তোফাজ্জল কবীর মিলন, লালন উদ্দিন, আবদুল হামিদ মিঞা অন্তরার বাড়িতে হাজির হয়ে তার হাতে ভর্তির খরচ প্রদান করেন। এ সময় তার মা রসুনারা বেওয়া পাশে ছিলেন।
এ সময় মেডিকেলে চান্স পাওয়া অন্তরা বলেন, আর্থিক অনটনের মধ্যেও নিজের ইচ্ছা শক্তি আর সবার দোয়ায় এ পর্যায়ে পোঁছাতে পেরেছি। কিন্তু আমার পরিবারের পক্ষে মেডিকেলে ভর্তির টাকা জোগাড় করা কষ্টকর হচ্ছিল। বিষয়টি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানার পর আমাকে ভর্তির টাকা দিয়ে সহযোগিতা করায় আমি অত্যন্ত খুশি এবং কৃতজ্ঞ।
এর আগে তাকে আর্থিক সহযোগিতা করেন জেলা জেলা প্রশাসক, র‌্যাব-৫, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, এক্সিম ব্যাংক, স্থানীয় তার শিক্ষা প্রতিষ্টান।
উল্লেখ্য, দরিদ্র পরিবারের মেয়ে অন্তরা খাতুন। তার বাবা ১৮ বছর পূর্বে দূরারোগ্য ব্যাধিতে মারা যায়। পরবর্তীতে তার মা রসুনারা বেওয়া অন্যের বাড়ীতে কাজ করে ও ভাই সোহেল রানা রাজমিস্ত্রির দিনমজুরী করে সংসার চালানোর পাশাপাশি তার লেখপড়ার খরচ যোগান দেয়। এবার এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে ২০২১Ñ২০২২ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সে মেধা তালিকায় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেলেও আর্থিক অনটনের কারণে ভর্তি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। বিষয়টি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি গোচর হয়। এরই প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদিক কবির অন্তরার বাড়িতে হাজির হয়ে তার হাতে ভর্তির খরচ প্রদান করেন।