বাঘা মাজারের প্রধান গেটে বাঁশ টানিয়ে আনসার নিয়োগ তারপরও দর্শার্থীরা মানছেনা বিধিনিষেধ

0
80

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাঘায় রেড জোন ঘোষণার পর মাজারের প্রধান গেটে বাঁশ টানিয়ে দেয়া হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে আনসার সদস্যকে নিয়োগ করে এই গেটে বসিয়ে দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তারা মাজারে লোক প্রবেশের অনুমতি দিলেও দর্শার্থীরা মানছেনা বিধিনিষেধ। আনছার সদস্য ও পুলিশ নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করেও ব্যার্থ হচ্ছেন।
জানা যায়, করোনাভাইরাসের বিস্তার বেড়ে যাওয়ায় দ্বিতীয় ঢেউয়ে বুধবার থেকে বাঘা উপজেলাকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। তার পর থেকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য এলাকাই মাইকিং করা হচ্ছে। এছাড়া জনগণ সমাগম এলাকায় সতর্কতার সাথে চলাচল করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এই নির্দেশনার পর থেকে বাঘা মাজারের প্রধান গেটে বাঁশ টানিয়ে দেয়া হয়েছে।
বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রাসেদ আহম্মেদ জানান, এ যাবত পর্যন্ত উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২৫ জন। উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের। তবে একটি বাড়িতে করোনা রোগী শনাক্ত হলে, পুরো এলাকা লকডাউন না করে, সেই বাড়িসহ আশেপাশের কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করা হচ্ছে।


  1. এ বিষয়ে বাঘা মাজারের মতোয়ালী খন্দকার মো. রইশ উদ্দীনে জানান, বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারনে নিরাপত্তার সার্থে মাজারের মুল গেটে আনসার সদস্য নিয়োগ করা হয়েছে। আনছার সদস্যরা লোক সমাগম ঠেকাতে বাঁশ টানিয়ে দিয়েছেন। তবে কোন মানুষ যেন হুড়াহুড়ি না করে, সে জন্য এ কাজ করা হয়েছে। তবে মাজার দেখতে আসা মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভেতরে প্রবশে করানো হচ্ছে। তারপরও অনেক দর্শার্থীরা বিধিনিষেধ মানছেনা।
    এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পাপিয়া সুলতানা বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য মাজারের মতোয়ালীকে দেখভাল করার জন্য বলা হয়। তিনি আনসার বসিয়ে বাঁশ টানিয়ে দিয়েছেন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে। এ জন্য জনগণকেও সচেতন হতে হবে। করোনার মতো ভয়ঙ্কর ব্যাধিকে মোকাবিলা করতে জনসচেতনতার বিকল্প নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে