বাঘায় কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিক কাজ করেন অন্য শ্রমিক নেতার বাড়িতে

0
217

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাঘায় কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিক দিয়ে এক শ্রমিক নেতার বাড়িতে মাটি কাটার কাজ করার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (৩ মে) উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের চন্ডিপুর এলাকায় ১৩ জন শ্রমিক দিয়ে কাজ করেন বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন।
জানা যায়, সোমবার সকাল ১০ টায় উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের চন্ডিপুর এলাকায় রাস্তার উপর থেকে টলিতে নামানো মাটি ফেলছেন শ্রমিক নেতা আকবর আলীর বাড়ির উঠনে। এই খবর শুনে প্রকল্পের সভাপতি বাজুবাঘা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর আলমঙ্গীর হোসেনকে বিষয়টি অবগত করা হয়। পরে ১৩ জন শ্রমিক প্রকল্পের নির্ধারিত চন্ডিপুর গ্রামের গোরস্থানে কাজ শুরু করেন। এ সময় গণমাধ্যম কর্মীর কাছে শ্রমিকা আকবর আলীর বাড়ির উঠানে মাটি কাটার বিষয়ে সত্যতা শিকার করেন। আকবর আলী বাজুবাঘা ইউনিয়নের কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিকের দল নেতা।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান-কর্মসূচি প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের জন্য প্রতি ইউনিয়নে ৪০ জন করে শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। শ্রমিকরা সকাল ৭টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ২০০ টাকার মুজুরিতে সরকারি প্রতিষ্ঠান, রাস্তা সংস্কার ও মেরামতের কাজ করবেন।
শ্রমিক নেতা আকবর আলী বলেন, আমার ব্যক্তিগত কিছু মাটি রাস্তার উপর ছিল। সাধারণ মানুষের অসুবিধার কারনে কয়েক ডালি মাটি কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিক দিয়ে সরিয়ে দিতে বলি। এ সময় কিছু মানুষ প্রকল্পের সভাপতি ইউনিয়ন মেম্বরকে অভিযোগ করেন। আমি বিষয়টি অবগত হওয়ার সাথে সাথে নির্ধারিত কাজে পাঠিয়ে দিই।
বাজুবাঘা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর আলমগীর হোসেন কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিক দিয়ে শ্রমিক নেতার বাড়িতে কাজ করার বিষয়ে শিকার করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পাপিয়া সুলতানা বলেন, এই প্রকল্পের অধীনে যারা কাজ করেন তারা অধিকাংশ বয়স্ক। সরকারি কাজের বাইরে কাজ করার কোন সুযোগ নাই। তবে এ বিষয়ে চেয়ারম্যানের কাছে শ্রমিকের তালিকা নিয়ে যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে