পুঠিয়ায় স্ত্রী ও পাঁচ মাসের কন্যাকে শিশুকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা

0
19

পান্না, রাজশাহী ব্যুরো :
রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় নেশার টাকার জন্য এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে তার স্ত্রী-কন্যাকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ ফিরোজ আলী (২৬) নামের ওই ব্যক্তিকে প্রেপ্তার করেছে। সোমবার দিবাগত রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে পুঠিয়া পৌরসভার গোপালহাটি ফকিরপাড়া মহল্লায় এ হত্যাকাÐের ঘটনা ঘটে।

ফিরোজের স্ত্রীর নাম পলি খাতুন (২০)। আর ছয় মাস বয়সী শিশুকন্যার নাম ফরিহা। তাদের দুজনকেই শ^াসরোধে হত্যা করা হয়েছে। ঘুমিয়ে থাকার কারণে বেঁচে গেছে আড়াই বছরের শিশুপুত্র ফাহিম আলী। রাতে ফাহিম আলীর কান্না শুনতে পেয়ে ফিরোজের বাবা-মা ঘরে ঢুকেন। এ সময় তারা পলি ও ফারিহাকে বিছানায় মৃত অবস্থায় পান। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ যায়।

সকালে মরদেহ দুটির সুরতহাল শেষ করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠায় পুলিশ। এর আগে ভোরে ঢাকার গাবতলী এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাস থেকে ঘাতক ফিরোজকে আটক করা হয়। পুলিশ লাশ দুটির পাশ থেকে একটি বালিশ জব্দ করেছে। পুলিশের ধারণা, এই বালিশ চাপা দিয়েই স্ত্রী-কন্যাকে হত্যা করেছেন ফিরোজ আলী।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ফিরোজ আলী বিয়ের আগে থেকেই নেশাগ্রস্থ ছিলেন। চার বছর আগে পুঠিয়া পৌরসভার কৃষ্ণপুর পশ্চিমপাড়া মহল্লার জুলহাস আলীর মেয়ে পলি খাতুনের সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নেশার টাকার জন্য তিনি বাড়ির বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করতেন। এ নিয়ে তার স্ত্রীর পলির সাথে মাঝে মধ্যেই ঝগড়া বিবাদ হতো। মাঝে মধ্যে ফিরোজ তার স্ত্রীকে শারিরিক নির্যানত চালাতেন। নেশার টাকার জন্য এ হত্যাকাÐ ঘটেছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

এবিষয়ে রাজশাহী জেলার পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, ফিরোজ আগে বাসে সুপারভাইজার হিসেবে কাজ করতেন। একটি সড়ক দুর্ঘটনায় তার এক পা কাটা পড়ে। এরপর থেকে তিনি অতিমাত্রায় হেরোইনে আসক্ত হয়ে পড়েন। মাঝেমধ্যে টাকা চাওয়ায় স্ত্রীর পলি খাতুনের সাথে প্রায়ই ঝগড়া করতেন ফিরোজ। এই রাগে স্ত্রী ও কন্যাশিশুকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

ওসি জানান, মৃতদের শরীরের কোথাও আঘাতের চিহ্ন না থাকায় এবং পাশে বালিশ পড়ে থাকায় ধারণা করা হচ্ছে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।
ওসি আরও জানান, তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় রাতেই ফিরোজের অবস্থান নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর ঢাকার পুলিশের সহায়তায় গাবতলী থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। তাকে রাজশাহী আনা হচ্ছে। আর এ নিয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়েরেরও প্রক্রিয়া চলছে। এ মামলায় ফিরোজকে আসামি করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে