রাজনৈতিক বিবেচনায় দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন-শহিদুজ্জামান শাহীদ

0
36

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি :
আগামী ১৬ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হবে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এবার সরকারীদল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে এখানে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন ৮ জন। এর মধ্যে কেন্দ্রে পাঠানো প্রার্থীদের তালিকা ও রাজনৈতিক বিবেচনায়-দীর্ঘ সময় আড়ানী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করার সুবাদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেছেন শহিদুজ্জামান শাহীদ।
সরেজমিন আড়ানী পৌর এলাকা ঘুরে লক্ষ করা গেছে, নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট ও দেয়ালে বিলবোর্ড এবং পোস্টার সাঁটিয়ে প্রার্থীতার প্রত্যাশার কথা জানান দিচ্ছেন অনেকেই। পাশা-পাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চোখে পড়ছে জোর প্রচার কাজ। ইতোমধ্যে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশিদের নামের তালিকা বর্ধিত সভার মাধ্যমে জেলায় প্রেরণ করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ।
তবে আওয়ামী লীগের একাধিক সিনিয়র নেতার ভাষ্য মতে, ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীতা চাইবেন অনেকেই। তবে দলীয় প্রধান হিসেবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে ক্ষেত্রে যাকে সমন্বিত ভাবে প্রার্থী করা হবে তার জন্য অন্যদের কাজ করতে হবে। এদিক থেকে যারা প্রার্থীতা চেয়েছেন তাদের মধ্যে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায়, ছাত্র জীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত, কেন্দ্রের যে কোন নির্দেশনায় সক্রিয় ভুমিকায় পালন এবং একটানা ৭ বছর আড়ানী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করার সুবাদে দলীয় মনোনন প্রত্যাশা করেছেন শহিদুজ্জামান শাহীদ।


তিনি মঙ্গলবার স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক সাক্ষাত করে বলেন, এবার যারা দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন তার মধ্যে রাজনৈতিক আলোচনা ও উপজেলা আ’লীগের বর্ধিত সভা থেকে জেলায় যে তালিকা প্রেরণ করা হয়েছে সেখানে আমার নাম ১ নম্বরে রয়েছে। আমি আড়ানী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসাবে দলের কেন্ত্রীয় হাই কামান্ডের কাছে মনোনয়ন প্রত্যাশী। দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়, তাহলে আমি শতভাগ নিশ্চিত বিজয় লাভ করবো। সে লক্ষে তিনি এলাকায় ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা চালাচ্ছেন বলেও উল্লেখ করেন।
শহীদুজ্জামান শাহীদ বলেন, আমি রাজশাহী বিশ্ব বিদ্যালয়ে পড়া শোনা করতে গিয়ে সেখান থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়। বর্তমানে উপজেলা এবং পৌর আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। আমি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলাম, জেলা যুবলীগের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহŸায়ক কমিটির সদস্য ছিলাম। বর্তমানে সফলতার সঙ্গে আড়ানী পৌর সভার সভাপতির দায়িত্ব পালন করছি। এছাড়া আমি আড়ানী ডিগ্রী কলেজের আজীবন দাতা সদস্য ও আলহাজ এরশাদ আলী মহিলা ডিগ্রী কলেজ এবং আড়ানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। আমি কভিট ১৯ করোনা কালে ব্যক্তি উদ্যোগে কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছি।
শহীদুজ্জামান তাঁর স্বপ্ন ও আশা ব্যাক্ত করে বলেন, আমি আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেলে আড়ানী পৌরসভার মেয়র পদটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেব। জননেত্রীর স্বপ্ন বাস্ত বায়নের জন্য কাজ করবো। স্থানীয় সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপির সহযোগিতায় আড়ানী পৌরসভার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার পাশা-পাশি আড়ানীকে সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও চাঁদাবাজ মুক্ত মডেল এবং আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলবো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে