রাজশাহীর বাঘায় মাইকে পণ্য ও প্রতিষ্ঠানের প্রচারে অতিষ্ঠ মানুষ

0
47

 প্রিন্স, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর বাঘায় হরেক রকম পণ্য ও বিপণি বিতান-সহ, ক্লিনিকে অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রোগী দেখার প্রচার মাইকের শব্দ দূষণে দুষিত হয়েছে পরিবেশ, সেইসঙ্গে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। প্রতিনিয়ত মাইকের ব্যবহারে ঐতিহ্যবাহী মাজার শরিফ ও প্রাচীনতম মসজিদে আসা দর্শনার্থী-সহ খোদ এলাকাবাসিরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। এ নিয়ে সম্প্রতি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা মিটিংএ কথা উঠেছে। তবে অদ্যাবধি নেয়া হয়নি কার্যকারি কোন ব্যবস্থা ।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, প্রতি রবি ও বৃহস্পতিবার বাঘা উপজেলা সদরে হাট বসে। এই দু’দিন ভ্যান যোগে প্রায় ডজন খানেক প্রচার মাইক বের হয়। এ ছাড়াও সপ্তাহের প্রায় দিনই চলে নানা বিষয় নিয়ে প্রচারণা। এসব প্রচারনায় পূর্ব থেকে কথা রেকডিং করে সেই রেকড বাজানো হয়। এদের মধ্যে ক্লিনিকগুলোতে অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রোগী দেখার প্রচার উল্লেখযোগ্য। মঞ্জু ডায়াগনস্টিক সেন্টার, পিওর ল্যাব, তুষার হোমিও হলে সু-চিকিৎসা,  আলহেরা ডায়াগনস্টিক সেন্টারসহ প্রায় ডজনখানেক  ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গড়ে উঠেছেে উপজেলা সদরে ও উপজেলা স্বাস্থ্যয কমপ্লেক্স এর সামনে।

আমাদের প্রতিনিধি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আক্তারুজ্জামান এর সঙ্গে এ সকল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বৈধতা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি সঠিক উত্তর দিতে পারেন নাই।

অন্যদিকে  ইলেকট্রনিক্স পণ্য সামগ্রী বিক্রয়ের  মাইকিং এর  অগ্রযাত্রায় রয়েছে ওয়ালটন ও সিঙ্গার প্লাজা। তাদের ধামাকা অফার নিয়ে প্রচার বিশেষ ভাবে উল্লেখ যোগ্য।

অপর দিকে মুরগি, গরু মহিষের মাংস ক্রেতা ভাইদের জন্য প্রায় দিনই থাকে সুখবর যা মাইকিং করে দিনের শুরুতে কিংবা রাতে প্রচার করে থাকে।

সম্প্রতি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় একজন কলেজ শিক্ষক বলেন, রাজশাহীর যে’কটি উপজেলা রয়েছে তার মধ্যে বাঘায় সবচেয়ে বেশি মাইক এর দোকান রয়েছে। বর্তমানে পাশ্ববর্তী লালপুর,পুঠিয়া, চারঘাট এমনকি পাবনার ঈশ্বরদী থেকেও এখানে মাইক ভাড়া করতে আসে লোকজন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক  অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, আমরা এখন মাইকের শব্দে অতিষ্ঠ। নানা প্রচারণার নামে দিনভর মাইকে শব্দ দূষণ আমাদের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। বিশেষ করে করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীরা যে বাড়িতে বসে পড়াশোনা করবে তারও উপায় নেই।

বাঘা পৌর এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক খন্দকার মনোয়ারুল ইসলাম মামুন বলেন , অত্র এলাকায় বর্তমানে যেভাবে মাইকে প্রচারণা চালানো হচ্ছে এটা রীতিমতো বে-আইনি কাজ। তার মতে, অত্র এলাকায় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে একমাত্র মৃত মানুষের জানাজা এবং সরকারি কাজে প্রচার-প্রচারনা ছাড়া সব ধরণের প্রচার মাইক নিষিদ্ধ করা উচিত।
বাঘা উপজেলা নির্বাহী  অফিসার   শাহিন রেজা বলেন, মাসিক সভায় এ বিষয়ে কথা উঠার পরে মাইকের দোকানদার সহ যারা প্রতিনিয়ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রচার-প্রসারের জন্য সস্তায় মাইকের ব্যবহার করে, তাদেরকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে