রাজশাহীর বাঘায় বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার ৪২, রিকল নিস্পত্তিতে ছাড়া পায় ২৫ আসামী, ১৭ আসামী জেল হাজতে প্রেরণ

0
179

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজশাহী জেলা পুলিশের সহায়তায় এক রাতে ৪২ বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে বাঘা থানা পুলিশ। এ অভিযানে হত্যা,মাদক, নারী নির্যাতন এবং সাজাপ্রাপ্ত ওয়ারেন্ট মিলে ৪২ জনকে গ্রেফতার করলে রিকল নিস্পত্তির কারনে চাড়া পায় ২৫ জন এবং ১৭ জন কে জেল হাজতে প্রেরন করে বাঘা থানা পুলিশ। সেই সঙ্গে উদ্ধার হয় ৩০ লিটার বাংলা মদ ও দুই’শ গ্রাম গাঁজা। বুধবার (২৯/০১/২০২০) রাতে চারঘাট সার্কেলের সিনিয়ার এ.এস.পি নুরে আলম ও বাঘা থানা অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।
বাঘা থানা সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাতে জেলা পুলিশের সহায়তায় ৬ টি গ্রæপে বিভক্ত হয়ে বিভিন্ন অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত ৪২ টি বাড়িতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে বাঘা থানা পুলিশ। এ অভিযানে অভিযুক্ত আসামী পাওয়ার পরেও রিকল নিস্পত্তির কারণে ২৫ জন ছাড়া পায়। অবশিষ্ট ১৭ জনের মধ্যে বিভিন্ন মামলায় ওয়ারেন্ট ভূক্ত আসামী রয়েছে ৮ জন, মাদক মামলায় ৫ জন, হত্যা মামলায় ১ জন এবং অন্যান্য অপরাধে ৩ জন।
গ্রেফতারকৃত আসামীদের মধ্যে সম্প্রতি উপজেলার সুলতানপুর এলাকায় স্কুল ছাত্রী ইপটিজিং এর ঘটনায় হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী সুমনের পিতা আরজেত আলী ভুলাকে কুষ্টিয়া পুলিশের সহায়তায় দৌলতপুর এলাকা থেকে রাত ১০ টায় গ্রেফতার করে বাঘা থানা পুলিশ। এ ছাড়াও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার ধন্দহ ও নারায়নপুরে অভিযান চালিয়ে ৩০ লিটার বাংলা মদ এবং ২ শত গ্রাম গাঁজা সহ আটক করেন ৫ জনকে। এরা হলেন-ধন্দহ অমরপুর এলাকার আনবার ও বিশু এবং নারায়নপুর গ্রামের শ্রী শ্যামল কুমার, সাক্ষাত আলী ও তুহিন।
অপর দিকে মাদক, সাজাপ্রাপ্ত ও নারী নির্যাতন মামলায় ওয়ারেন্ট ভুক্ত ৮ জন আসামীকে আটক করে পুলিশ। এরা হলেন, আলাইপুর গ্রামের রিপন আলী, দোস্তল মন্ডল ও আজিবর, পলাশী ফতেপুর গ্রামের আনবার আলী ও মনোয়ারা, ঝিনা গ্রামের মিরাজুল,মহদীপুর গ্রামের শরিফুল ও পলাশী ফতেপুর গ্রামের আসলাম আলী। এদের মধ্যে শরিফুল মাদক মামলায় ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত আসামী বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে দুই পক্ষের সংঘর্ষ সহ অন্যান্য মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে উপজেলার ধন্দহ্ এলাকার ঝুন্টু, আবুল কাশেম ও হেলানা বেগম কে।
বাঘা থানা অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, রাজশাহী জেলা পুলিশের সহায়তা ও চারঘাট সার্কেলের সিনিয়র এ.এস.পি নুরে আলম স্যারের নেতৃত্বে বুধবার রাতভর ৬ টি গ্রæপে আমরা অভিযান চালায়। এ অভিযানে ৪২ বাড়িতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৪২ জনকে আটক করা হলেও রিকল নিস্পত্তির কারনে ২৫ জন ছাড়া পায়। অবশিষ্ট ১৭ জন আটককৃত আসামীদের বৃহস্পতিবার (৩০/০১/২০২০) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে