একাধিক স্বামী পরিত্যাক্তা খাদিজার মিথ্যা মামলা ও প্রাণনাশের হুমকিতে দিশেহারা এলাকাবাসী ও নির্যাতিত মোস্তফার পরিবার

0
224

মোঃ খলিলুর রহমান, নিজস্ব প্রতিনিধি (চট্টগ্রাম): চট্টগ্রাম ইপিজেড থানাধীন রেলবিট, বায়তুল আমান জামে মসজিদের পাশে ইপিজেড গেইট, চট্টগ্রাম মোস্তফা কলোনী নামক স্থানে গত ০৮ আগষ্ট ২০১৯ইং ও ১৮ আগষ্ট ২০১৯ইং রাত্র আনুমানিক ৯:০০ ঘটিকা এ ঘটনা ঘটে।
ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া থানার পশ্চিম সোনাউটা গ্রামের মোঃ মাহবুব খান এর কন্যা খাদিজা বেগম বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলার ইপিজেড থানাধীন বন্দরটিলা সিটি কর্পোরেশন মার্কেটের পেছনে হাসান ভিলা ৩য় তলা, অস্থায়ীভাবে বসবাস করিয়া রেলবিট বায়তুল আমান মসজিদের পাশে একটি দোকান ঘর ভাড়া নিয়া দর্জি দোকানের নামে ২/৩ বৎসর যাবত সারা অপরিচিত লোকজন নিয়া রাত্র ভর আড্ডা ও দেহ ব্যবসার কার্যক্রম ও সাধারণ মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করিয়া তাহাকে ব্লাক মেইল করিয়া টাকা আত্মসাত করার নেশায় ব্যস্ত থাকে, এই খাদিজা এলাকার মানুষের সাথে ভাল ব্যবহার না করে তাদের সাথে খারাপ আচার আচারণ করেন। এ বিষয় এলাকার সাধারণ লোকজন গণস্বাক্ষর দিয়া গত ০৮ আগষ্ট ২০১৯ইং তারিখ পুলিশ কমিশনার সিএমপি চট্টগ্রাম বরাবর একখানা অভিযোগ দায়ের করিলে উক্ত অভিযোগ খানা ১৩১২০/৯ম (অপরাধ) বর্তমানে ৮০৩ পিপি ১৮ আগষ্ট ২০১৯ইং ডিসি পোর্ট এর নিকট তদন্তর জন্য প্রেরণ করেন। উক্ত দরখাস্তে খাদিজার মিথ্যা মামলা, হামলা ও হয়রাণি হুমকি থেকে বেচে থাকার বিস্তারিত বিবরণ উল্লেখ রয়েছে।
একাধিক স্বামী পরিত্যক্ত খাদিজা দীর্ঘদিন যাবত এলাকার মানুষের সাথে অসামাজিক খারাপ আচার আচারণ মিথ্যা মামলা হুমকি ধামকির বিষয় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পেপার পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পরও ক্ষ্যান্ত হয়নি তারর নির্যাতন। পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার তেওয়ারিপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মৃতু আব্দুল হামিদ তালুকদার এর পুত্র গোলাম মোস্তফা তালুকদার (৫৬) বর্তমানের চট্টগ্রাম জেলার ইপিজেড থানাধীন বন্দরটিলা রেলবিট বায়তুল আমান মসজিদ সংলগগ্ন মোস্তফা কলোনীর মালিক মোস্তফা তালুকদার জানায় একাধিক স্বামী পরিত্যক্ত খাদিজা একজনা প্রতারক, চাঁদাবাজ, ব্লাক মেইল গ্রুপের সদস্য মামলাবাজ ঝগড়াটে, দাঙ্গাবাজ লোক হয়। খাদিজা ও তার ভাই আঃ রহিম এই দুইজনে মিলে টেইলার্সের ব্যবসা করার জন্য গত ০১/১১/২০১৬ইং তারিখ গোলাম মোস্তফার নিকট হইতে চুক্তিপত্র মূলে দোকান ভাড়া গ্রহণ করিয়া কিছুদিন নিয়মিত ভাড়া প্রদানের পর ভাড়া বন্ধ করিয়া দেয়। ভাড়া টাকা অগ্রিম হইতে সমন্বয় করার পর খাদিজা ও তার ভাই আঃ রহিমের নিকট ভাড়ার টাকা দাবী করিলে তাহারা এলোমেলো কথাবার্তা বলিতে থাকে এবং গত ৮ মাস যাবত ভাড়া দেওয়া বন্ধ করিয়া দেয়। ইতিমধ্যে উক্ত খাদিজা ও তার ভাই আঃ রহিম দোকানের আড়ালে অসমাজিক কার্যকলাপের কারণে স্থানীয় ব্যবসায়ী / জমিদারগণ গণস্বাক্ষারে বিগত ০৮ আগষ্ট ২০১৯ইং তারিখে পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের বরাবরে অবৈধ হয়রানির হাত হতে রক্ষর জন্য আবেদন করেন যাহার স্মারক নং ১৩১২০/৯ম (অপরাধ) বর্তমানে স্মারক ৮০৩/ পিপি ১৮/০৮/২০১৯ইং ডিসি বন্দর এর নিকট প্রেরণ করিলে তিনি ৫৬৩/আর স্মারক তারিখ ২৬ আগষ্ট ২০১৯ইং ওসি ইপিজেড থানাকে প্রেরণ করেন। উক্ত খাদিজা ও তার ভাই এর বিভিন্ন প্রতারণার বিষয় নিয়া বিভিন্ন অনলাইন/ ˆদৈনিক পত্রিকায় সংবাদ প্রচারিত হইয়াছে তিনি আরো জানায় উক্ত খাদিজা তার ভাই রহিম গোলাম মোস্তফার দোকানের ভাড়া পরিশোধ না করায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগের মুখে উক্ত খাদিজা ও তার ভাইকে দোকান ঘর ছাড়িয়া দেওয়ার অনুরোধ করিলে খাদিজা মোস্তফাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করিতে থাকে। উল্টা টাকা দাবী করে। আঃ রহিম গোলাম মোস্তফাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাহির করিয়া দেয়। খাদিজা ও তার ভাই রহিমের চিৎকার গালাগাল শুনিয়া পাশ্ববর্তী বাসা হইতে গোলাম মোস্তফার স্ত্রী খালেদা বেগম, কণ্য মাহমুদা আক্তার মিতু সহ অন্যান্য লোকজন আসিয়া গোলাম মোস্তফা তালুকদার এর সাথে এহেন আচরণের কথা বিজ্ঞাসা করিতে গেলে খাদিজা গোলাম মোস্তফার তিন মাসের অন্তসত্ত্বা স্ত্রীকে তলপেটে লাথি মারিয়া রাস্তায় ফেলিয়া দেয়। মোস্তফার কণ্য মিতু উদ্ধারে আগাইয়া আসিলে খাদিজার ভাই আঃ হিম মিতুকে এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি লাথি মারিতে থাকে এক পর্যায় লাথির আঘাতে এপেনডিস অপারেশন সেলাই ফাটিয়া রক্তাক্ত জখম হয়। গোলাম মোস্তফার স্ত্রী তলপেটে মারাত্ত্বক জখম প্রাপ্ত হওয়ায় স্ত্রী এবং কণ্যার রক্তক্ষরণ শুরু হওয়ায় গোলাম মোস্তফা তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় গাইনি বিশষেজ্ঞ ডাক্তারের নিকট নিয়া গেলে স্ত্রীর গর্ভের সন্তান নষ্ট হইয়া গিয়াছে মর্মে জানান এবং কণ্যার এপেনডিক্স অপারেশন সেলাই ফাটিয়া যাওয়ায় চিকিৎসা করাইয়া ব্যবস্থাপত্র প্রদান করেন। মোস্তফার স্ত্রী কণ্যার চিকিৎসা করাইয়া কিছুটা সুস্থ হইয়া বর্তমানে বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছে এ বিষয় মোস্তফা মামলা করবে কিনা জানতে চাইলে মোস্তফা জানান মামলার কার্যক্রম চলিতেছে স্ত্রী কণ্যা ভাল হওয়ার পর মামলা করিব। এ বিষয় খাদিজার ০১৭৭৯-৮৯০৫০১ মুঠো ফোনে যোগাযোগ করিলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে