গোদাগাড়ীতে সাঁন্তাল বিদ্রোহের ১৬৫তম দিবস উদযাপিত

0
10

(পান্না), রাজশাহী ব্যুরো: রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে সাঁন্তাল বিদ্রোহের মহান নেতা সিধু কানহুর আতœত্যাগ ও ১৬৫ তম সাঁন্তাল বিদ্রোহ দিবস পালন করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাজাবাড়ী হাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই দিবসটি পালন করা হয়।

রক্ষাগোলা সমন্বয় কমিটির সভাপতি প্রসেন এক্কার সভাপতিত্বে সিসিবিভিও- রক্ষগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠন সমুহের ৩৫টি রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠন সমূহের যৌথ উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়।

জানাযায়,সাঁন্তাল বিদ্রোহের মহান নেতা সিধু-কানহুর আত্মত্যাগ ও ১৬৫তম সাঁন্তাল ‘হুল’ বা বিদ্রোহ দিবস। এই দিনে সাঁন্তল-কৃষক-জনতা ব্রিটিশ শাসক ও তাদের এদেশীয় দালাল, মহাজন, জমিদার শ্রেনীর কবল থেকে স্বাধীনতা ও মুক্তির আকাঙ্খায় বিদ্রোহ ঘোষনা করেছিলেন।

প্রতিবছর তাদের এই সংগ্রামকে সিসিবিভিও-রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠনসমূহ গভীরভাবে স্মরণ করে। দিসবটি উপলক্ষে মঙ্গলবার গোদাগাড়ী উপজেলার রাজাবাড়িহাট উচ্চ বিদ্যালয় শহীদ মিনারে পুস্প স্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি সিসিবিভিও শাখা কার্যালায় রাজাবাড়িহাট থেকে শুরু হয়ে রাজাবাড়িহাট উচ্চ বিদ্যালয় শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে অতিথিসহ রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠনসমূহের বিভিন্ন জনজাতির ১০২জন নারী-পুরুষ তাদের নিজস্ব সংস্কৃতির পোশাক ও ফেস্টুনে সজ্জিত হয়ে অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনা সভায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গোদাগাড়ী উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ ও খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি শ্রী কৃষ্ণ কুমার সরকার, সিসিবিভিও’র রক্ষাগোলা খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচির হিসাবরক্ষক এএইচএম তারিক, প্রদীপ মার্ডী। বক্তাগণ বলেন,“মহান সান্তাল বিদ্রোহ ছিল ভারতবর্ষে বৃটিশ কোম্পানী শাসনের বিরুদ্ধে প্রথম সংগ্রাম যার স্øোগান ছিল ‘লড়ো না হয় মরো, ইংরেজ আমাদের মাটি ছাড়ো, আমার দেশ আমার শাসন’। বর্তমান সরকার ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠী বান্ধব সরকার। ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠীর সমস্যাসমূহ ও নির্যাতন প্রতিরোধে সকলকে একতাবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান।”

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শাহাবুদ্দিন সিহাব, ইমরুল সাদাত, সুদক্ষন টপ্প্য, ভবেশ লাকড়া, নিরঞ্জন কুজুরসহ অনেকেই। আলোচনা সভাটি সঞ্চালন করেন সিসিবিভিও’র প্রশিক্ষণ সমন্বয়কারী মো: নিরাবুল ইসলাম নিরব।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে