নব নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মেরাজ সরকার বাঘা উপজেলার উজ্জল নক্ষত্র বললেন : শামসুদ্দিন

0
48

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজশাহীর বাঘায় উৎসবমুখর পরিবেশ ও প্রাণবন্ত অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে রবিবার নব-নির্বাচিত ৩ নম্বর পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিয়েছেন রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ সরকার। একই সাথে দায়িত্ব নিয়েছেন অন্যান্য সকল নির্বাচিত সদস্যবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চারঘাট-বাঘা আসনের সাংসদ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের পিতা সমাজসেবক শামসুদ্দিন আহমেদ।
রবিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান মেরাজ সরকারের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সমাজসেবক শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, মেরাজ বাঘা উপজেলার উজ্জল নক্ষত্র। নেতৃত্ব দেবার মতো যোগ্যতা আছে তাঁর। তাঁকে এলাকার জণগনের পক্ষ থেকে সহযোগিতা দিতে হবে। মেরাজ সরকারের পাশে আছেন বর্তমান সরকারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শাহরিয়ার আলম। রয়েছেন মেরাজের মামা বাঘা পৌরসভার সফল ও সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী ।
শামসুদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, দেশ চলে ট্যাক্সের টাকায়। জনগণ যদি ঠিকমত ট্যাক্স পরিশোধ করে তাহলে এলাকার উন্নয়ন গতিশীল হয়। মেরাজ একটু আগে তার বক্তব্যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন , তিনি কোন দুর্নীতি করবেন না। মাদকমুক্ত সমাজ গড়বেন। নিজের অর্থ দিয়ে দরিদ্র পরিবারের শিক্ষিত সন্তানদের সহায়তা করবেন। আমি তার মধ্যে সোনালী ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছি। আমার বিশ্বাস এই এলাকার জনগণ যদি তাঁকে সঠিক পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করে তাহলে তিনি অনেক দুর এগিয়ে যেতে পারবেন।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাঘার সফল ও সাবেক মেয়র , সাবেক পাকুড়িয়া ইউপি চেয়াম্যান আক্কাছ আলী বলেন, বাঘা উপজেলার মধ্যে ভৌগলিক কারণে পাকুড়িয়া ইউনিয়নের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। কারণ এটি নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা। আপনারা জেনে খুশি হবেন, পরিকল্পিত নদী ভাঙ্গনরোধ প্রকল্প ইতোমধ্যে অনুমোদন হয়েছে। যা খুব দ্রুত বাস্তবায়ন হবে।

সভায় মেরাজ সরকার বলেন, আমি শপথ গ্রহনের ১০ দিন পর আজ রবিবার পরিষদের দায়িত্ব নিলাম। ভোটের প্রচারের সময় আপনারা লক্ষ্য করেছেন, আমার হাতে একটি ডায়েরি এবং একটি কলম ছিলো। আমি বাড়ি-বাড়ি ভোট চাওয়ার সময় সেই কলম দিয়ে এলাকার কিছু সমস্যা চিহ্নিত করেছি। এর বাইরে আমার নির্বাচনী কিছু ওয়াদা রয়েছে। আমি কথা দিচ্ছি, আমার প্রত্যেকটি ওয়াদা আমি অক্ষরে-অক্ষরে পালন করবো, এই পরিষদকে একটি মডেল ইউনিয়ন পরিষদ হিসাবে গড়ে তুলবো।

তিনি নতুন ইউপি সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, সমাজের সাধারণ মানুষ ও হতদরিদ্রদের জীবন-মান উন্নয়নে সামাজিক নিরাপত্তার অংশ হিসেবে যে সকল প্রকল্প রয়েছে, যদি কেউ সে সকল প্রকল্প বাস্তবায়নে কোন অর্থ লেনদেন করেন, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি সরকারি অনুদানের কার্ড পেতে কাউকে অর্থ না দেয়ার জন্য এলাকাবাসীদের বিশেষভাবে আহবান জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিদায়ী চেয়ারম্যান ফকরুল হাসান বাবলু , বিদায়ী সদস্য মোজাম্মেল হক ভাদু ও ছিয়ার উদ্দিন, বর্তমান সদস্য আব্দুর রউফ, বাঘা পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডি.জি.এম সুবির কুমার দত্ত, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহমান, কাজী আব্দুল মান্নান, ব্র্যাক ম্যানেজার খালেদা সুলতানা প্রমুখ। সভায় উপস্থিত ছিলেন পাকুড়িয়া ইউনিয়নের সুধীজনসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here