হারভেস্টপ্লাস বাংলাদেশ কর্তৃক বায়োফটিফাইড জিংক ধানের অভিযোজন এবং বাজারজাতকরণ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হ‘লো

0
115

নিজস্ব প্রতিবেদক,রাজশাহীঃ গ্রীন সিটি রাজশাহী মহানগরীর একটি হোটেলের হলরুমে হারভেষ্ট বাংলাদেশ কর্তৃক বায়োফটিফাইড জিংক ধানের অভিযোজন এবং বাজারজাতকরণ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হ‘লো। আজ (২৫/১১/২০১৯) সকাল ১০ ঘটিকায় সেমিনারটি উদ্ভোধন করেন হারভেষ্ট বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ম্যানেজার ডঃ মোঃ খায়রুল বাশার।
আজকের অুনষ্ঠানের মধ্যমনি ও সভাপতি ডঃ মোঃ খায়রুল বাশার তাঁর উদ্ভোধনী শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ কৃষি গবেষনা ইনষ্টিটিউট কর্তৃক ব্রি ধান-৬২, ব্রি ধান-৬৪, ব্রি ধান-৭২, ব্রি ধান-৭৪ এবং ব্রি ধান-৮৪ নামক পাঁচটি বায়োফটিফাইড জিংক ধান উদ্ভাবিত হয়েছে। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ^বিদ্যালয় হতে বিইউ অ্যারোমেটিক হাইব্রিড ধান-১, বিইউ ধান-২ এবং বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষনা কর্তৃক বিনা ধান-২০।


তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ জিডিপিতে প্রতিবছর ভিটামিন এবং মিনারেল ঘাটতি জনিত ব্যয় ৭০০ বিলিয়ন ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকা। সেইসঙ্গে আরো বলেন ১৫-১৯ বছর বয়সের শতকরা ৩৬ ভাগ কিশোর কিশোরীরা জিংকের অভাবে খাটো হয়ে যাচ্ছে এবং এর সমাধান করতে হলে ১৬ কোটি মানুষ প্রতিদিন জিংক জাতের চাউলের ভাত খেলে শতকরা ৭০ ভাগ জিংকের চাহিদা পুরণ হতে পারে বলেও জানান তিনি।
এছাড়া অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ জিংক ধানের সম্ভাবনা নিয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, হারভেস্টপ্লাসের সীড সিস্টেম স্পেশালিষ্ট মোঃ মজিবর রহমান, বাজারজাতকরণ পরিকল্পনা নিয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হারভেস্ট বাংলাদেশ এর প্রকল্প সমন্বয়কারী সৈয়দ মোঃ আবু হানিফা। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন বিজ্ঞানী, নীতি নির্ধারক , ধান ও চাউল বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তাগন ।
সর্বোপরি আজকের হারভেস্ট বাংলাদেশ কর্তৃক সভায় বক্তাগন খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা অর্জনের মাধ্যমে সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল অর্থাৎ টিকসই বাংলাদেশ অর্জন করা সম্ভব বলে আশা পোষন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here